Habibur Rahman

মোংলায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক যুবককে মেরে রক্তাক্ত জখম করেছে সন্ত্রাসীরা

বিশেষ প্রতিনিধি: মোংলায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক যুবককে মেরে রক্তাক্ত জখম করেছে কয়েক জন সন্ত্রাসীরা।

বৃহস্পতিবার বিকালে চিলা ইউনিয়নের বৈদ্যমারী বাজারে একটি মাছের ডিপোর সামনে এঘটনা ঘটে। আহত যুবক মামুন শেখ’কে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এনিয়ে বৈদ্যমারী বাজার এলাকায় লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

পুলিশ ও প্রত্যাক্ষদর্শীরা জানায়, বৈদ্যমারী বাজারে মাছের ডিপো তৈরী করে প্রতারনার মাধ্যমে সাধারন মানুষ ও জেলেদের কাছ থেকে ওজনে মাছ বেশী নেয়া, মাছ চুরী করা এবং মাছ বিক্রি করার টাকা নিয়ে প্রতারনা করে আসছিল রহিম তালুকদারসহ কয়েক জন ব্যাক্তি।

বৃহস্পতিবার বিকালে কিছু গলদা চিংড়ী মাছ নিয়ে রহিম তালুকদারের ডিপোতে যায় মামুন শেখ। সেখানে তার পালায় মাপকাঠী দিলে ওই মাছের ওজনে কম হয় কিন্ত অন্য ডিপোতে ওই মাছ ওজনে বেশী হয়।

এ সময় বৈদ্যমারী বাজারের হিরনের মাছের ডিপোর সামনে রাস্তার উপরে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসীরা অকথ্যভাষায় গালিগালাজ করে মামুনকে। মামুন এতে প্রতিবাদ করায় এক পর্যায় রহিম তালুকদার ও বাবুল তালুকদার সহ অপরিচিত ৪/৫ জন সন্ত্রাসী মামুনকে এলোপাথারীভাবে মারতে থাকে।

এতে মামুন শেখ (৩০) গুরুতর আহত হয়। মারামারীর এ ঘটনা দেখে বাজার অন্যান্য ব্যাবসায়ীরা ছুটে আসলে মামুনকে অচেতন অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায় রহিম তালুকদারসহ তাদের সন্ত্রাসী গ্রুপটি।

এ সময় মামুনকে উদ্ধার করে স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মামুন শেখ বাদী হয়ে আঃ রহিম তালুকদার (৩৫), মোঃ মিলন তালুকদার (৩০) ও মোঃ বাবুল তালুকদার (৩৪)সহ আরো অপরিচিত ২/৩ জনকে আসামী করে মোংলা থানায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৈদ্যমারী বাজার এলাকায় দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

মোংলা থানার সহকারী উপ-পুলিশ পরিদর্শক আমিরুল ইসলাম জানায়, মোংলা উপজেলা চিলা ইউনিয়নের বৈদ্যমারী বাজারে বৃহস্পতিবার বিকালে মারামারীর ঘটনা নিয়ে একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ’র নির্দেশনায় সংশ্লিষ্ট অফিসারকে অভিযুক্তদের গ্রেফতারের জন্য পাঠানো হবে বলে জানায় তিনি।

admin: